image description

Bokkhali


বকখালি-- তুলনামূলক ভাবে সস্তা এবং নিরালা সমুদ্র সৈকত


শিয়ালদহ স্টেশন থেকে লোকাল ট্রেনে নামখানা স্টেশনে নেমে, ই-রিকশা করে জেটিঘাটে পৌছতে হবে। তারপর লঞ্চে নদী পার হয়ে, ভ্যান রিকশা করে বাসস্ট্যান্ড । বাসস্ট্যান্ড থেকে প্রাইভেট কার অথবা বাসে করে বকখালি।




বকখালি বাসস্ট্যান্ডের কাছে অনেক বাজেট হোটেল পাওয়া যাবে। তাছাড়া, সমুদ্র সৈকতের কাছেও কিছু হোটেল আছে, কিন্তু সেগুলোর ভাড়া একটু বেশী। তবে সৈকতের কাছে সবথেকে ভালো রিসোর্ট  হলো দ্বৈপায়ান রিসোর্ট (চলভাষঃ ৯৭৩৪৮২২০৪৬,৯৫৯৩১৮৬৪৯৭)। ব্যালকনি দিয়ে সমুদ্রের দিকে চেয়ে, কাটিয়ে দেয়া যায় ঘন্টার পর ঘন্টা। 
দুদিন কাটিয়ে দেয়া যায়, বকখালিতে। এখানকার সমুদ্রে ঢেউ কম, ফলে নিশ্চিন্তে স্নান করা যায়। বকখলির কাছেই আরো অনেক গুলো spot আছে। ই-রিকশা করে কয়েক ঘন্টার মধ্যে ঘোরা যায় Henri's Iland, Benfish, Jambu Dweep, Fraser Ganj, Mousuni Island etc. স্পটগুলো। বেনফিস থেকে লঞ্চ ভাড়া করে (১০০০/- - ১৬০০/- টাকা ভাড়া) জম্বু দ্বীপে যাওয়ার অভিজ্ঞতাও কিন্তু ভোলার নয়। বিকেলের দিকে ঘুরে নেওয়া যায়, কাছেই কুমীর প্রজেক্টে। 



এখানকার "পেটাই পরোটা" খুব বিখ্যাত। ওজন দরে বিক্রি হয়। খেতে পারেন লালদই। তাছাড়া রাতের বেলায় সমুদ্র সৈকতে  মাছভাজা তো খাবেনই। 
সবমিলিয়ে দুদিনের জন্য বকখালি আসাধারণ।